আমরা কেন দু’য়া করব?

সৃষ্টিকুলের প্রত্যেকেই অভাবী এবং আল্লাহর কাছে যা আছে তার মুখাপেক্ষী। আর আল্লাহ তা’আলা অভাব মুক্ত – তিনি কারো মুখাপেক্ষী নন। আল্লাহ তালা আমাদের উপর আবশ্যক করে দিয়েছেন, আমরা তাঁর কাছে দু’য়া করব। আল্লাহ বলেন, “তোমরা আমাকে ডাক আমি ডাকে সাড়া দিব। নিচ্ছয় যারা আমার ইবাদত করতে অহংকার প্রদর্শন করে; অচিরেই তারা লাঞ্ছিত অবস্থায় জাহান্নামে নিক্ষিপ্ত…

এত কিছুর পরও তওবার দরজা খোলা

দয়া – কে পেয়েছে? – যে সফল হয়েছে সফলকাম কে? – সাফল্য পেয়েছে কে? কে কামিয়াবি হয়েছে? যার নেকির পাল্লা হয়েছে ভারী যে অবলম্বন করেছে তাক্বওয়া .. যার নেকি হয়েছে অগণিত, তার কাঁধ হয়ে যাবে আদম (আ:) এর মতো চওড়া , সোন্দর্য হবে ইউসুফ (আ:) এর মতো, অন্তর পাবে আইউব (আ:) এর, ইসা (আ:) মতো…

খাঁটি মুসলমান ও কপট মুসলমান

লেখক: আমিন বেগ লোকে বলে, ‘মুসলমান’ দুই প্রকার : খাঁটি মুসলমান ও কপট মুসলমান। খাঁটি মুসলমান তিনি, যিনি ইসলামের দৃষ্টিতে মুসলমান। আর কপট মুসলমান তিনি, যিনি শুধু আদমশুমারির মুসলমান, ইসলামের দৃষ্টিতে মুসলমান নন। খাঁটি মুসলমানের রয়েছে অনেক বাধা। তিনি পৌত্তলিক হতে পারেন না, ধর্মত্যাগী হতে পারেন না, ধর্ম-বিদ্বেষী হতে পারেন না, এমনকি ধর্মনিরপেক্ষও হতে পারেন…